Category : Miscellaneous

প্রফেশনাল লোগো ডিজাইন শিখার সহজ কৌশল

By Staff Panel | May 15th, 2019 | Print this study
প্রফেশনাল লোগো ডিজাইন শিখার সহজ কৌশল

Logo(লোগো) একটি ইংরেজি শব্দ যার মানে হল ব্রান্ড বা প্রতিষ্ঠানের প্রতীক। একটি শব্দ বা ইমেজের মাধ্যমে এক সাথে অনেক কিছুর বহিপ্রকাশ। এটি একটি দেশ, প্রতিষ্ঠান, কোম্পানি বা ব্যাক্তিত্ব সহ অনেক কিছু প্রকাশ করে। তাইতো এখন সবাই লোগো ব্যবহার করে থাকে। যে সিম্বল দেখলে চোখের সামনে কোম্পানির চেহারা ভেসে ওঠে সেটিই সার্থক একটি লোগো। একজন সাধারণ মানুষের চোখে লোগো মানে কোম্পানি বা প্রডাক্ট। লোগোর ওপর ভিত্তি করে একটি ব্র্যান্ড দাঁড়িয়ে যায়। এবং একজন ডিজাইনারের কাছে লোগো মানে ক্লায়েন্টের ভাবাদর্শ একটি গ্রাফিক দিয়ে প্রকাশ করা। বর্তমানে প্রায় সবার নিজস্ব ওয়েবসাইট রয়েছে। যেটির জন্যে লোগো প্রয়োজন হয়। কোম্পানির সেবা প্রকাশের জন্যও এটি অপরিহার্য হয়ে গেছে। লোগো দেখতে অনেক সিম্পল মনে হলেও ডিজাইন করার সময় অনেক দিকে লক্ষ্য রাখতে হয়। এখানে লোগো ডিজাইনের বেসিক নিয়ম এবং কিছু কিছু প্রোফেশনাল টিপস আলোচনা করা হয়েছে।

আজকের টিউটোরিয়ালের বিষয় প্রফেশনাল লোগো ডিজাইন(Creative Logo Design) শিখার সহজ কৌশল, এই টিউটোরিয়ালে দেখাব কিভাবে Peofessional মানের লোগো ডিজাইন করতে হয়। লোগো ডিজাইন করা একদম এ সহজ ব্যাপার না। কিছু শেপ, কালার ফন্ট দিয়ে একটা ডিজাইন করলে ই সেটা লোগো ডিজাইন হয়ে যাবে না। লোগো একটা ব্র্যান্ড এর পরিচয়, লোগোর মাধ্যমে দর্শক বুঝবে সেই কোম্পানির কাজ কি, সে কোম্পানি কি করে। তাই লোগো ডিজাইন এ টেকনিক্যাল দক্ষতার পাশাপাশি আপনাকে সৃজনশীল হতে হবে, কি রকম লোগো বানাবেন সেটা নিয়ে প্ল্যান করতে হবে হবে এবং নিয়ম অনুযায়ী এগুতে হবে মোট কথা হচ্ছে আপনি কম্পিউটার টেবিল এ বসলেন আর কিছু শেপ, টেক্সট আর রঙ দিয়ে লোগো করে ফেললেন ব্যাপারটা একদম এরকম না। সবার আগে আপনাকে প্রস্তুতি গ্রহন করতে হবে।

একটি ভাল মানের লোগো ডিজাইন করতে হলে সবার আগে যে জিনিস টা প্রয়োজন তা হল আইডিয়া বা ধারণা। আপনার বিভিন্ন ব্রান্ড এর লোগো দেখে দেখে তাদের লোগোর মিনিং বুঝতে হবে। যে কোন কোম্পানি তাদের লোগো কিভাবে ডিজাইন করেছে। তাহলে আপনি একটা পরিস্কার ধারনা পেয়ে যাবেন। আপনি জানেন না যারা অভিজ্ঞ তাদের লোগো কেমন হয় আপনি হয়তো দেখেন ই নাই তারা কিরকম ডিজাইন করে তাহলে আপনি ভাল লোগো ডিজাইন করতে পারবেন না। তাই আপনাকে লোগো দেখতে হবে, ভাল লোগো, খারাপ লোগো সব দেখতে হবে তাহলে ই আপনি ধারনা পাবেন কিভাবে লোগো ডিজাইন করতে হয়। সে জন্য ইন্টারনেট এ কিছু সাইট আছে সেখানে গেলে আপনি অনেক সুন্দর সুন্দর লোগো দেখতে পাবেন যা আপনার উপকার এ আসবে।

এছাড়া ও আপনি কিছু ওয়েবসাইট দেখতে পারেন যেগুলি লোগো ডিজাইন এর পাশাপাশি অন্যান্য ডিজাইন ও আপনি দেখতে পাবেন তাহলে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্পর্কে সুন্দর একটা ধারনা পাবেন যেমন

https://dribbble.com/

http://www.deviantart.com/

আপনি এখান থেকে বিভিন্ন ভাবে আইডিয়া নিতে পারেন, গুগল আছে সেখান থেকে আইডিয়া নিতে পারেন। সাধারণ ভাবে আইডিয়ার জন্য আপনি সব ধরন এর লোগো ডিজাইন দেখেন আবার আপনি যখন নির্দিষ্ট কোম্পানির জন্য লোগো ডিজাইন করবেন যেমন আপনি রিয়াল এস্টেট কোম্পানির জন্য লোগো তৈরি করবেন একটু দেখে নিন সার্চ করে রিয়াল এস্টেট কোম্পানির লোগোগুলি কি রকম হয়, কোন ভাবে ই নকল করা যাবে না শুধু অনুপ্রেরনা।

প্রফেশনাল লোগো ডিজাইন নিয়মাবলী

একটি সুন্দর লোগো সব সময় খুব সিম্পল হতে হবে এবং সেখানে একটা মেসেজ থাকতে হবে। সেই কোম্পানির কি করতে চায়, কি ধরনের কোম্পানি সেটা একটা সিম্বল এর মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে হবে। লোগো অবশ্যই প্রফেশনাল হতে হবে। সেগুলি করতে হলে আপনাকে লোগো ডিজাইন এর কিছু বেসিক নিয়ম আছে সেগুলি জানতে হবে।

লোগো অবশ্যই সিম্পল হতে হবে

লোগো যদি সিম্পল হয় তাহলে মানুষ সেটা দেখে সহজে বুঝতে পারবে। এমন লোগো আপনি বানালেন যেটা দেখে বুঝতে সময় লাগে অনেক তাহলে সেই লোগো দর্শক গ্রহন করবে না।

আপনার লোগো মনে রাখার মতো হতে হবে

এমন লোগো ডিজাইন করতে হবে যেটা দর্শকরা মনে রাখবে, তার মানে কিন্তু এই না সেখানে অনেক কালার ব্যবহার করতে হবে, অনেক রকম স্টাইলিশ ফন্ট ব্যবহার করতে হবে ইত্যাদি। আপনার লোগো তখনই মানুষ মনে রাখবে যখন সেটা সিম্পল হবে কিন্তু সেটার মধ্যে একটা স্টোরি থাকবে।

লোগো স্থায়ী হতে হবে

এমন ভাবে লোগো ডিজাইন করবেন যেন সেটা সময় এর সাথে সাথে পুরানো হয়ে না যায় না, সেই কোম্পানিকে যেন দএক বছর বছর পর পর লোগো ডিজাইন করার কথা চিন্তা করতে না হয়। বিভিন্ন মার্কেট প্লেস এ দেখা যায় বায়াররা জব পোস্ট করে আগের লোগো পুরানো হয়ে গেছে নতুন করে আধুনিক লোগো বানাতে চায়।আর সেটা আগের লোগো ডিজাইনার এর জন্য খুব সুখকর হউয়ার কথা না। তাই সময় এর সাথে লোগো যেন পুরানো না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

সব জায়গায় দেখতে ভাল লাগতে হবে

আপনি একটা লোগো ডিজাইন করলেন যেটা অনেক বড় করে বিল বোর্ড এ দিলে দেখতে চমৎকার লাগে আবার একদম ছোট করে বিজনেস কার্ড এ দিলে খুবই বিশ্রী লাগে, আবার কালার অবস্থায় অনেক সুন্দর লাগে কিন্তু সাদাকালো করলে কিছুই বুঝা যায় না, এখানে ও সিম্পল লোগোর কথা চলে আসবে, আপনার লোগো ডিজাইন যখন অনেক জটিল হয়ে যায় তখন সেই লোগোর সাইজ অথবা কালার পরিবর্তন করলে অনেক কিছু বুঝা যায় না।

বিসয়বস্তুর সাথে মিলতে হবে

আপনি যে কোম্পানির জন্য লোগো করছেন অথবা কোন ইভেন্ট এর জন্য লোগো করছেন সেই কোম্পানির যে উদ্দেশ্য অথবা সেই ইভেন্ট এর যে বিষয় তার সাথে মিল রেখে অবশ্যই লোগো বানাতে হবে। যেমন একটা বাচ্চাদের খেলনা বিক্রি করে এরকম কোন স্টোর এর লোগো বানাচ্ছেন সেখানে আপনাকে Childish font ব্যবহার করতে হবে এবং কালার ও হতে হবে অনেক ব্রাইট। ঠিক করুন আপনার লোগো ডিজাইনএর প্রসেস।

আপনাকে ঠিক করতে হবে আপনি লোগো ডিজাইন কিভাবে করবেন। কোন স্টেপ এর পর কোন স্টেপ আসবে। শুধু কম্পিউটার এ সফটওয়্যার নিয়ে বসে গেলে ই তো লোগো হয় না আরও অনেক ব্যাপার আছে যেগুলি আপনাকে মানতে হবে। এক একজন ডিজাইনার এর ডিজাইন প্রসেস এক এক রকম হতে পারে কিন্তু কিছু বেসিক ব্যাপার আছে যেগুলি সব ডিজাইনার ই মেনে চলে। যেমন

ব্র্যান্ডের আদ্যপ্রান্ত জেনে নিন

লোগো ডিজানের স্কেচ শুরুর আগে ক্লায়েন্টের ব্র্যান্ডের পেছনে কিছু সময় ব্যয় করুন। ক্লায়েন্ট কোন দেশের নাগরিক? তারা কি করে? তাদের মতাদর্শইবা কি? ক্লায়েন্ট যদি পূর্বে কোনো লোগো ডিজাইন করিয়ে থাকে তাহলে সেগুলোও আগে দেখে নিন। কি ধরণের লোগো ক্লায়েন্ট রিজেক্ট করেছে, কেন করেছে বা কি ধরণের লোগো পূর্বে ক্লায়েন্ট সিলেক্ট করেছে- এসব কিছু জেনে নিন ডিজাইন শুরুর পূর্বেই। ক্লায়েন্টের রুচিবোধ সম্পর্কে তাহলে অনেকটা ধারণা চলে আসবে এবং খুব দ্রুত কাংখিত লোগো ডিজাইন করা যাবে।

গবেষণা করে নিন

আপনি যখন বায়ার এর কাছে জানতে চাইবেন তখন হয়তো সে তাদের ওয়েবসাইট এর ঠিকানা আপনাকে দিয়ে দিবে এবং বলবে এখান থেকে সব কিছু বের করে নেয়ার জন্য। তখন আপনি সেই ওয়েবসাইট থেকে বের করে নিবেন, কোন ধরনের কোম্পানি, কি কাজ করে, মুল উদ্দেশ্য কি, এরপর আপনি ওরকম এ অন্য কোন ওয়েবসাইট এ ঢুকবেন অথবা গুগলে সার্চ দিবেন বুঝার চেষ্টা করবেন বাকিরা কিভাবে চিন্তা করেছে, যেহেতু এক ই ধরন এর কোম্পানি তাই আপনি ধারনা নিতে ই পারেন। এখানে কপি করা যাবে না, ধারনা নিয়ে নিজের মতো বানাতে হবে।

কাগজে কলমে একে নিন

বায়ার এর চাহিদা এবং আপনি গবেষণা করার পর কি বের হল সেগুলি কাগজে ড্রাফট করে ফেলুন।

একটু বিরতি নিন

কাগজে একে ফেলার পর ডিজাইন করার আগে একটু বিরতি নিন কারন বিরতি নিলে ডিজাইন এর আইডিয়াটা আরও বেশি পরিপক্ক হবে যেটা প্রফেশনাল লোগো ডিজাইন এর জন্য অনেক দরকার।

বায়ারকে লোগো দেখান

এরপর ডিজাইন করুন, সব কাজ ই কিন্তু হয়ে গেল শুধু ডিজাইন বাকি, তাহলে দেখলেন তো কম্পিউটার এ বসে ডিজাইন করা কতো পরের বিষয় অন্তত লোগো ডিজাইন এর ক্ষেত্রে। একটা কপি না করে কয়েকটা কপি করুন তারপর বায়ারকে দেখান, বায়ার কি বলে সেগুলি শুনুন তারপর ভুলগুলি ঠিক করুন।

এভাবে তৈরি করুন পেশাদার আর আকর্ষনীয় মানের লোগো।

Tag Cloud:
লোগো ডিজাইন গ্রাফিক ডিজাইন লোগো ডিজাইন করে আয়

×